আচার্য্য-বন্দনা

জয়রে জয়রে জয়পরমহংস মহাশয়
শ্রীভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ।
গোস্বামী ঠাকুর জয়পরম করুণাময়
দীনহীন অগতির গতি ॥
 
নীলাচলে হইয়া উদায় ।
শ্রীগৌড়মণ্ডলে আসি'প্রেমভক্তি পরকাশি'
জীবের নাশিলা ভব-ভয় ॥
 
তোমার মহিমা গাইহেন সাধ্য মোর নাই
তবে পারি যদি দেহ শক্তি ।
বিশ্বহিতে অবিরতআচার-প্রচারে রত
বিশুদ্ধ শ্রীরূপানুগা ভক্তি ॥
 
শ্রীপাট খেতরি-ধামঠাকুর শ্রীনরোত্তম
তোমাতে তাঁহার গুণ দেখি ।
শাস্ত্রের সিদ্ধান্ত-সারশুনি লাগে চমৎকার
কুতার্কিক দিতে নারে ফাঁকি ॥
 
শুদ্ধভক্তি-মত যতউপধর্ম্ম-কবলিত
হেরিয়া লোকের মনে ত্রাস ।
হানি' সুসিদ্ধান্ত-বাণউপধর্ম্ম খান খান
সজ্জনের বাড়ালে উল্লাস ॥
 
স্মার্ত্তমত জলধরশুদ্ধভক্তি রবি-কর
আচ্ছাদিল ভাবিয়া অন্তরে ।
শাস্ত্রসিন্ধু মন্থনেতেসুসিদ্ধান্ত ঝঞ্ঝাবাতে
উড়াইলা দিগ্­দিগন্তরে ॥
 
স্থানে স্থানে কত মঠস্থাপিয়াছ নিষ্কপট
প্রেমসেবা শিখাইতে জীবে ।
মঠের বৈষ্ণবগণকরে সদা বিতরণ
হরিগুণ-কথামৃত ভবে ॥
 
শুদ্ধভক্তি-মন্দাকিনীবিমল প্রবাহ আনি
শীতল করিলা তপ্তপ্রাণ ।
দেশে দেশে নিষ্কিঞ্চনপ্রেরিলা বৈষ্ণবগণ
বিস্তারিতে হরিগুণগান ॥
 
পূর্ব্বে যথা গৌরহরি,মায়াবাদ ছেদ করি
বৈষ্ণব করিলা কাশীবাসী ।
বৈষ্ণবদর্শন-সূক্ষ্মবিচারে তুমি হে দক্ষ
তেমতি তোষিলা বারাণসী ॥
 
দৈববর্ণাশ্রম-ধর্ম্মহরিভক্তি যার মর্ম্ম
শাস্ত্রযুক্তে করিলা নিশ্চয় ।
জ্ঞান-যোগ-কর্ম্মচয়মূল্য তার কিছু নয়
ভক্তির বিরোধী যদি হয় ॥
 
শ্রীগৌড়মণ্ডল ভূমিভক্তসঙ্গে পরিক্রমি
সুকীর্ত্তি স্থাপিলা মহাশয় ।
অভিন্ন ব্রজমণ্ডলগৌড়ভূমি প্রেমোজ্বল
প্রচার হইল বিশ্বময় ॥
 
কুলিয়াতে পাষণ্ডীরাঅত্যাচার কৈল যা'রা
তা সবার দোষ ক্ষমা করি' ।
জগতে কৈলে ঘোষণা'তরোরিব সহিষ্ণুনা'
হন 'কীর্ত্তনীয়ঃ সদা হরিঃ' ॥
 
শ্রীবিশ্ববৈষ্ণব-রাজ-সভামধ্যে "পাত্ররাজ"
উপাধি-ভূষণে বিভূষিত ।
বিশ্বের মঙ্গল লাগি'হইয়াছ সর্ব্বত্যাগী
বিশ্ববাসী জন-হিতে রত ॥
 
করিতেছ উপকারযাতে পর উপকার
লভে জীব শ্রীকৃষ্ণ-সেবায় ।
দূরে যায় ভব-রোগখণ্ডে যাহে কর্ম্মভোগ
হরিপাদপদ্ম যা'তে পায় ॥
 
জীব মোহ-নিদ্রাগতজাগা'তে বৈকুন্ঠদূত
'গৌড়ীয়' পাঠাও ঘরে ঘরে ।
উঠরে উঠরে ভাইআর ত সময় নাই
'কৃষ্ণ ভজ' বলে উচ্চৈঃস্বরে ॥
 
তোমার মুখারবিন্দ-বিগলিত মকরন্দ
সিঞ্চিত অচ্যুত-গুণগাথা ।
শুনিলে জুড়ায় প্রাণতোমা মোহ অন্তর্দ্ধান
দূরে যায় হৃদয়ের ব্যথা ॥
 
জানি আমি মহাশয়যশোবাঞ্চা নাহি হয়
বিন্দুমাত্র তোমার অন্তরে ।
তব গুণ বীণাধারী,মোর কন্ঠ-বীণা ধরি'
অবশেতে বলায় আমারে ॥
 
বৈষ্ণবের গুণ-গানকরিলে জীবের ত্রাণ
শুনিয়াছি সাধুগুরুমুখে ।
কৃষ্ণভক্তি সমুদয়জনম সফল হয়
এ ভব-সাগর তরে সুখে ॥
 
তে-কারণে প্রয়াসযথা বামনের আশ
গগনের চাঁদ ধরিবারে ।
অদোষ-দরশী তুমিঅধম পতিত আমি
নিজগুণে ক্ষমিবা আমারে ॥
 
শ্রীগৌরাঙ্গ-পারিষদঠাকুর ভক্তিবিনোদ
দীনহীন পতিতের বন্ধু ।
কলিতমঃ বিনাশিতেআনিলেন অবনীতে
তোমা' অকলঙ্ক পূর্ণ ইন্দু ॥
 
কর কৃপা বিতরণপ্রেমসুধা অনুক্ষণ
মাতিয়া উঠুক জীবগণ ।
হরিনাম-সংকীর্ত্তনেনাচুক জগত-জনে
বৈষ্ণব-দাসের নিবেদন ॥
 

 


 

← গ্রন্থাগারে ফিরে

(১) ডাউনলোড (4.5 Mb)


(২) ডাউনলোড (5.4 Mb)

 


 

সূচীপত্র:
আমার জীবন সদা
অক্রোধ পরমানন্দ
ভয়ভঞ্জন-জয়শংসন
বজহুঁরে মন
ভজ রে ভজ রে আমার
ভুলিয়া তোমারে
বিমল হেমজিনি
দশাবতারস্তোত্রম্
ধন মোর নিত্যানন্দ
দুর্লভ মানব জন্ম
এইবার করুণা কর
এমন দুর্ম্মতি
গায় গোরা মধুর স্বরে
গোপীনাথ মম নিবেদন শুন
গুরুদেব! কৃপাবিন্দু দিয়া
শ্রীমদ্ভক্তিবিনোদবিরহদশকম্ (হা হা ভক্তিবিনোদঠক্কুর)
হরি হরয়ে নমঃ কৃষ্ণ
হরি হে দয়াল মোর
হে দেব ভবন্তং বন্দে
জনম সফল তা'র
জয় গুরু-মহারাজ (শ্রীগুরু আরতি-স্তুতি)
জয় গুরু মহারাজ করুণাসাগর (শ্রীশ্রীনিতাই-চৈতন্য-আরতি)
জয় জয় গুরুদেবের (শ্রীগুরু-আরতি)
জয় জয় গোরাচাঁদের (গৌর-আরতি)
জয় রাধামাধব
জয় রাধে, জয় কৃষ্ণ
জয়রে জয়রে জয় পরমহংস
কবে হবে বল সে দিন আমার
কবে শ্রীচৈতন্য মোরে
কে যাবি কে যাবি
কি জানি কি বলে
কিরূপে পাইব সেবা
মানস দেহ গেহ
নমো নমঃ তুলসী মহারাণি
নিতাই আমার দয়ার অবধি
নিতাই গুণমণি আমার
মানস দেহ গেহ
ময়ূর-মুকুট
পরম করুণ
রাধা ভজনে যদি
করাধাকুণ্ডতট
রাধে রাধে গোবিন্দ
রাধিকা চরণ পদ্ম
সংসার-দাবানল (শ্রীগুর্ব্বষ্টকম্)
শ্রীগৌর-মণ্ডল মাঝে
শ্রীগুরুচরণ-পদ্ম
শ্রীগুরুপরম্পরা
শ্রীহরি-বাসরে হরি
শ্রীল-রঘুনাথদাস-গোস্বামি-শোচক
শ্রীমদ্রূপগোস্বামি-প্রভুর শোচক
শ্রীকৃষ্ণচৈতন্য প্রভু জীবে
শ্রীরূপমঞ্জরী-পদ
শ্রীশ্রীষড়্­গোস্বাম্যষ্টকম্
শ্রীশ্রীদামোদরাষ্টকম্
শ্রীশ্রীমদ্­গৌরকিশোরনমস্কারদশকম্
শুদ্ধ ভকত-চরণ-রেণু
সুজনার্ব্বুদরাধিতপাদযুগং
শুনহে রসিক জন
ঠাকুর বৈষ্ণবগণ
বৈষ্ণব কে ?
বৈষ্ণব ঠাকুর দয়ার
বন্দনা
যদি, গৌর না হ'ত
যশোদা-নন্দন কৃষ্ণ
যশোমতীনন্দন
যে আনিল প্রেমধন (বিরহ-গীতি)

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥