—শ্রীভক্তিসিদ্ধান্তবাণী—

(ভগবান শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ঠাকুর)

কৃষ্ণসেবা সম্বন্ধরহিত হইয়া ব্যষ্টিগত ও সমষ্টিগত ভোগার্থ যাহা ব্যয়, তাহাই অপব্যয় । বিড়ালের বিবাহ, পুতুল বিবাহ, দেবলমাত্র ভোগসর্ব্বস্ব মানুষের বিবাহ, ভোগের অধিকতর ইন্ধন-সংগ্রহের জন্য চণ্ডী বিষহরির পূজা উৎসবে অর্থ ব্যয়, নাস্তিকতার শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার জন্য অর্থ ব্যয় অপব্যয় মাত্র ; কিন্তু শ্রীভগবানের শ্রীমন্দিরের চূড়ায় দীপাবলী প্রদানোৎসবে—ভগবানের নাম প্রচারে—ভগবানের লীলাভিনয় বিস্তারে যে অর্থ ব্যয়, তাহা অপব্যয় নহে । সুতরাং যে সামাজিকগণ বিড়ালের বিবাহে, পুত্রকন্যার বিবাহে, চণ্ডী বিষহরির পূজায়, নাটক সিনেমায় অর্থের অপব্যয় করেন, তাঁহারা বন্যা দুর্ভিক্ষাদিতে দান করিয়া ত্যাগ শিক্ষা করুন—ইহাই শাস্ত্রবিধি । ঐ সকল ভোগের কার্য্যের ব্যয় সঙ্কোচ করুন ; কিন্তু যেখানে শ্রীভগবানের ভোগ বর্দ্ধন সেবা, সেখানে ব্যয় সঙ্কোচের কথা ভগবানের বিরুদ্ধে অভিযান মাত্র । ভগবানের সেবায় ব্যয় সঙ্কোচ করিবার পরিবর্ত্তে ব্যয় আরও অধিকতর ভাবে পরিবর্দ্ধনই করিতে হইবে । কৃষ্ণের ভোগবর্দ্ধন এবং কর্ম্মকাণ্ডের ভোগ সঙ্কোচ শিক্ষা প্রদানের জন্যই ভগবান ব্রজে ইন্দ্রযজ্ঞ বারণ করিয়া ইন্দ্রযজ্ঞার্থ আহৃত উপকরণের দ্বারা ভোগবর্দ্ধন গোবর্দ্ধনের সেবা শিক্ষা দিয়াছিলেন । আমরা যেরূপ কর্ম্মকাণ্ডীয় রীতিতে দুর্গোৎসবে দুর্গা দেবীর দশ হাত কাপড়ের পরিবর্ত্তে আড়াই হাত পরিমাণ একখানি বস্ত্রখণ্ড দিয়াই পূজার ব্যয় সঙ্কোচ করিবার আদর্শ দেখাই এবং নিজ পত্নীর জন্য গাউন আকারে বস্ত্র পরিধানের আবশ্যকতা বিচারে দশ হস্ত পরিমাণ বস্ত্রেও কার্য্যসিদ্ধির অভাব মনে করিয়া দ্বাদশ হস্ত পরিমিত বারাণসী শাড়ী ক্রয় করিয়া থাকে, সেরূপ কর্ম্মকাণ্ডীয় পূজা উৎসবাদির বিচার কৃষ্ণার্থে অখিলচেষ্ট, স্বরাট কৃষ্ণের পূর্ণতম ইন্দ্রিয়তর্পণে ব্যস্ত শ্রীগৌড়ীয় মঠের সেবকগণ হইতে দাবী করা শ্রীগৌড়ীয় মঠের উদ্দেশ্য তলাইয়া দেখিবার চিন্তা-শক্তির অভাব জ্ঞাপক ।

 


শ্রীগৌড়ীয়-দর্শন, ২য় বর্ষ, ৩য় সংখ্যা
২৩শে পদ্মনাভ, ২৭শে আশ্বিন, ১৩ই অক্টোবর, শনিবার, গৌরাব্দ ৪৭০, বঙ্গাব্দ ১৩৬৩, ইং ১৯৫৬


 

← গ্রন্থাগারে ফিরে

HARE KRISHNA HARE KRISHNA KRISHNA KRISHNA HARE HARE | HARE RAMA HARE RAMA RAMA RAMA HARE HARE