সর্বশেষ আপডেট:

 

শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮:
সাধ্যবস্তুর মূল : ছয় বেগ (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আমি, প্রতি বছর ধাম পরিক্রমায় যারা আসেন তাঁদেরকে পঞ্জিকা দিয়ে দেই, তার মধ্যে সুন্দর সুন্দর ভাবে কথাগুলা আমি লিখে দিয়েছি—যদি আপনারা এগুলা আচরণ করেন তাহলে আপনাদেরই পরমকল্যাণ লাভ হবে ।"

 

বুধবার, ১ অগাস্ট ২০১৮:
ভগবতধাম : পরমকল্যাণ ও সাধ্যবস্তু (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"পরমকল্যাণ এবং সাধ্যবস্তু কী ? আমাদের এই শ্রবণ কীর্ত্তন করার অর্থ কী ? রাধাগোবিন্দের সেবায় নিজেকে অর্পণ করা, তাঁদের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করা । সেটা হচ্ছচে আমাদের পরমাবস্থা ।"

 

রবিবার, ৮ জুলাই ২০১৮:
আনন্দদায়ক কষ্ট (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আমরা কৃষ্ণ চাই না, কৃষ্ণ-প্রেম চাই । যত অসুবিধা হক, যত ঝামেলা হক । ভগবান এসব কষ্ট দ্বারা আমাদের পরীক্ষা করেন, 'তোমার যদি আমি অনেক কষ্ট দেব, সেই কষ্ট তুমি সহ্য করতে পারবে তো ? সেই কষ্ট তুমি সহ্য করে আমার ভক্ত-সঙ্গে পরিক্রমা করতে তুমি পারবে ?'"

 

শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮:
অভিমানের পরিবর্তন (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"অভিমান-বুদ্ধি সব কিছু আমাদের নষ্ট করে দেয় এবং সেবা থেকে বিচ্যুত করে দেয় । অভিমানটা ছাড়তে হবে । আমরা ভোগও করব না, ত্যাগও করব না, আমরা সেবক । খুবই কম লোকের থাকে যে টা ছাড়া কিছুই জানেন না, টা ছাড়া কিছুই বুঝেন না ।"

 

রবিবার, ১৭ জুন ২০১৮:
নিত্য-সেবা (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"গৃহে থেকে ভগবানের সেবা করা যায় । সারা পৃথিবীর লোক যে একবারে সংসার ছেড়ে দিয়ে আসতে হবে এমন কথা নেই । আমরা যে কোন অবস্থায়ই থাকি না কেন, আমাদের প্রত্যেক দিন নিষ্ঠা সহকারে ঠাকুরের নিত্য-সেবা করতে হবে ।"

 

রবিবার, ১০ জুন ২০১৮:
ভক্তিজগতের পরীক্ষা (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"বৈষ্ণবের ছব্বিশটা গুণ আছে । সেই গুণটা আপনার মধ্যে আছে কি না ? সেইটা আপনাদেরকে নিজেই নিজের দিকে বিচার করতে হবে । এই জগতে লোকগুলো আছে যে বলে ভক্তি জগৎ নেয় । কিন্তু সেটা কি সত্য কথা ?"

 

শুক্রবার, ১ জুন ২০১৮:
বড় আশার বাধা (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"পরমপূজ্যপাদ শ্রীলভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ঠাকুর একটা কথা বলিয়াছেন, সেই কথারা সবসময় মনে রাখিতে হইবে । কথাগুলো মন দিয়ে শুনিবেন । এগুলো খুব গভীরের কথা, অত্যন্ত আশ্চর্য কথা । এই কথাগুলো প্রথাও বইটা লেখা নাই, এগুলা গুরুপাদপদ্ম-গুরুবর্গের মুখ থেকে শ্রবণ করা ।"

 

শুক্রবার, ১৮ মে ২০১৮:
কুটীনাটী ছাড়া আচরণ করিবেন (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আপনি কি করিতেছেন না করিতেছেন গোরা জানেন আপনি চর । ভগবানের কাছে গুরুদেবের কাছে কিছু লুকানো যাইবে না । তাঁরা সব জানিতে পারেন । কৃষ্ণোন্মুখে হইয়া শুদ্ধ আচরণ করিবেন তাহলে আপনাদের পরমকল্যাণ হইবে ।"

 

শুক্রবার, ১১ মে ২০১৮:
কেন আমরা প্রচারে যাই ? (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"সাধু-গুরু-বৈষ্ণবগণ অপরের বাড়িতে যান কি জন্য ? খাওয়া-দাওয়ার জন্য কিছু পাওয়ার ভরসায় আসেন না । তাঁরা আসেন এ পামর অধম জীবকে, পতীত জীবকে উদ্ধার করিবার জন্য, তাঁদেরকে কৃষ্ণোন্মুখ করিবার জন্য । এই শুধু আসল বস্তু ।"

 

শুক্রবার, ৪ মে ২০১৮:
নিতাইয়ের চরণে চরম প্রাপ্তি (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আমাদের চিন্তাধারার মূলই হইয়াছে নিত্যানন্দ প্রভু । তাঁকে কে জানিতে পারিয়াছেন ? নিত্যানন্দ যাঁকে কৃপা করিতেছেন, তিনি একমাত্র নিত্যানন্দকে জানিতে পারিবেন । নিত্যানন্দ প্রভু বিনা এই সংসারে আর কেউ নাই ।"

 

শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮:
"হৃদয়ে নিতাইয়ের কীর্ত্তন করুন" (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আপনাদের কাছে এই আমাদের প্রার্থনা যে আপনারা সব সময় এই উৎসবের কথা মনে রাখিবেন । নিতাইয়ের চরণ সবসময় চিন্তা করিতে হয় । এসব কীর্ত্তনগোল করিতে হইবে—সেবা করিতে করিতে হৃদয়ে কীর্ত্তন করিতে হইবে । এই ভাবে চিন্তা করিলে বুঝিতে পারিবেন যে এই নিত্যানন্দ প্রভুর চরণ বিন আর কিছু নাই ।"

 

শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮:
একমাত্র দয়াল সাগর (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"শ্রীমন্ নিত্যানন্দ প্রভুর কথা যদি আমরা শ্রবণ কীর্ত্তন করি এবং তাঁর সেবা করিতে পারি তাহলে আমাদের পরম কল্যাণ বস্তু লাভ হবে । সেই কল্যাণ বস্তু লাভের জন্য অনেক লোক রাধাকৃষ্ণের চরণে সেবা করিতে যান কিন্তু সেই সেবা পাওয়ার আগে নিত্যানন্দ প্রভুর সেবা করিতে হবে ।"

 

 

সংরক্ষণাগার : আগের আপডেট

 

 

 


শ্রীউপদেশ
শ্রীল আচার্য্য মহারাজের পাঠগুলা
ডাউনলোড
পড়তে
কিনতে

 


মূল শিক্ষা: নিয়মকানুন

      

 

শ্রীগৌড়ীয়-পর্ব্ব-তালিকা

আগস্ট মাস—৩১ দিন

৬ শ্রীধর, ১৬ শ্রাবণ, ২ আগস্ট, বৃহস্পতিবার, কৃষ্ণ-পঞ্চমী দিবা ৭।৪৮ । শ্রীল গোপাল ভট্ট গোস্বামী প্রভুর তিরোভাব । উঃ ৫।১১ অঃ ৬।১৭ ।

৯ শ্রীধর, ১৯ শ্রাবণ, ৫ আগস্ট, রবিবার, কৃষ্ণ-অষ্টমী দিবা ৬।৩২ পরে কৃষ্ণ-নবমী শেষরাত্রি ৫।১১ । শ্রীল লোকনাথ গোস্বামী প্রভুর তিরোভাব । উঃ ৫।১২ অঃ ৬।১৫ ।

১০ শ্রীধর, ২০ শ্রাবণ, ৬ আগস্ট, সোমবার, কৃষ্ণ-দশমী রাত্রি ৩।২৯ । উঃ ৫।১৩ অঃ ৬।১৪ ।

১১ শ্রীধর, ২১ শ্রাবণ, ৭ আগস্ট, মঙ্গলবার, কৃষ্ণ-একাদশী রাত্রি ১।২৯ । কামিকা একাদশী ব্রতের উপবাস । উঃ ৫।১৩ অঃ ৬।১৪ ।

১২ শ্রীধর, ২২ শ্রাবণ, ৮ আগস্ট, বুধবার, কৃষ্ণ-দ্বাদশী রাত্রি ১১।১৫ । প্রাতঃ ৬।৫৫ গতে ৯।৩৩ মধ্যে একাদশীর পারণ । উঃ ৫।১৩ অঃ ৬।১৩ ।

১৪ শ্রীধর, ২৪ শ্রাবণ, ১০ আগস্ট, শুক্রবার, কৃষ্ণ-চতুর্দ্দশী সন্ধ্যা ৬।২৪ । উঃ ৫।১৪ অঃ ৬।১২ ।

১৫ শ্রীধর, ২৫ শ্রাবণ, ১১ আগস্ট, শনিবার, অমাবস্যা দিবা ৩।৫৬ । ওঁ বিষ্ণুপাদ পরমহংস পরিব্রাজকাচার্য্যবর্য্য অষ্টোত্তরশতশ্রী শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজের তিরোভাব মহোৎসব । উঃ ৫।১৫ অঃ ৬।১১ ।

১৯ শ্রীধর, ২৯ শ্রাবণ, ১৫ আগস্ট, বুধবার, গৌর-চতুর্থী দিবা ৭।৪৪ । শ্রীল বংশীদাস বাবাজী মহারাজের তিরোভাব । উঃ ৫।১৬ অঃ ৬।০৮ ।

ভাদ্র মাস—৩১ দিন

২২ শ্রীধর, ১ ভাদ্র, ১৮ আগস্ট, শনিবার, গৌর-অষ্টমী অহোরাত্র । পূর্ব্বদিনের সপ্তমী তিথি ষষ্ঠী বিদ্ধা হওয়ায় অদ্য শ্রীপাদ অনঙ্গ মোহন দাসাধিকারী প্রভুর নির্য্যাণ । উঃ ৫।১৭ অঃ ৬।০৬ ।

২৪ শ্রীধর, ৩ ভাদ্র, ২০ আগস্ট, সোমবার, গৌর-নবমী দিবা ৬।০৩ । ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিপ্রসূন বোধায়ণ মহারাজের তিরোভাব । উঃ ৫।১৮ অঃ ৬।০৪ ।

২৫ শ্রীধর, ৪ ভাদ্র, ২১ আগস্ট, মঙ্গলবার, গৌর-দশমী দিবা ৭।১১ । উঃ ৫।১৮ অঃ ৬।০৪ ।

২৬ শ্রীধর, ৫ ভাদ্র, ২২ আগস্ট, বুধবার, গৌর-একাদশী দিবা ৮।৪৪ । পবিত্রারোপণী একাদশী ব্রতের উপবাস । শ্রীশ্রীরাধাগোবিন্দের ঝুলনযাত্রা আরম্ভ । নবদ্বীপ শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠে মাসব্যাপী শ্রীহরি স্মরণময় মহোৎসব আরম্ভ । উঃ ৫।১৮ অঃ ৬।০৩ ।

২৭ শ্রীধর, ৬ ভাদ্র, ২৩ আগস্ট, বৃহস্পতিবার, গৌর-দ্বাদশী দিবা ১০।৩৫ । প্রাতঃ ৫।১৯ গতে ৯।৩৩ মধ্যে একাদশীর পারণ । শ্রীল রূপ গোস্বামী প্রভুর ও শ্রীল গৌরীদাস পণ্ডিত গোস্বামীর তিরোভাব । শ্রীশ্রীকৃষ্ণের পবিত্রারোপন উৎসব । উঃ ৫।১৯ অঃ ৬।০২ ।

২৯ শ্রীধর, ৮ ভাদ্র, ২৫ আগস্ট, শনিবার, গৌর-চতুর্দ্দশী দিবা ২।৩৭ । উঃ ৫।১৯ অঃ ৬।০০ ।

৩০ শ্রীধর, ৯ ভাদ্র, ২৬ আগস্ট, রবিবার, পূর্ণিমা অপরাহ্ন ৪।২৮ । শ্রীশ্রীরাধাগোবিন্দের ঝুলনযাত্রা সমাপ্ত । শ্রীশ্রীবলদেব আবির্ভাব পৌর্ণমাসীর উপবাস । উঃ ৫।২০ অঃ ৬।০০ ।

হৃষীকেশ মাস—৩০ দিন

১ হৃষীকেশ, ১০ ভাদ্র, ২৭ আগস্ট, সোমবার, কৃষ্ণ-প্রতিপদ সন্ধ্যা ৬।০০ । প্রাতঃ ৫।২০ গতে পূর্ব্বাহ্ন ৯।৩৩ মধ্যে শ্রীশ্রীবলদেব আবির্ভাব উপবাসের পারণ । উঃ ৫।২০ অঃ ৫।৫৯ ।


 

      

 

 

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥