সর্বশেষ আপডেট:

 

রবিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: অবশেষামৃতম্
"এই গ্রন্থপ্রণয়নকার্য্যে আমার যে-সমস্ত সতীর্থ সুহৃদ্­বৃন্দ ও সজ্জনগণ জড়মতি আমার এই হৃদয়ে উৎসাহ-সঞ্চারাদি দ্বারা বা এই গ্রন্থের সংশোধনাদি দ্বারা অথবা ইহার অধ্যয়নাদি দ্বারা বা অন্য যে কোন প্রকারে তাঁহাদের মঙ্গলময় কৃপা এই অধম জনে বিস্তার করিয়াছেন বা করিবেন, তাঁহাদের সকলের শ্রীপাদপদ্ম আমি এই স্থানে পুনঃ পুনঃ বন্দনা করিতেছি"

শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্ (বাকি অধ্যায়):
শ্রীশ্রীপ্রভুপাদপদ্ম-স্তবকঃ (সুজনার্ব্বুদরাধিতপাদযুগং...)
শ্রীমদ্ভক্তিবিনোদবিরহদশকম্ (হা হা ভক্তিবিনোদঠক্কুর ! গুরো !)
শ্রীশ্রীমদ্­গৌরকিশোরনমস্কারদশকম্ (গুরোর্গুরো মে পরমো গুরুস্ত্বং)
শ্রীশ্রীদয়িতদাসদশকম্ (নীতে যস্মিন্ নিশান্তে নয়নজলভরৈঃ স্নাতগাত্রার্ব্বুদানাং)
শ্রীমদ্রূপপদরজঃ-প্রার্থনা-দশকম্ (শ্রীমচ্চৈতন্যপাদৌ চরকমলযুগৌ)
শ্রীদয়িত-দাস-প্রণতি-পঞ্চকম্ (ভয়ভঞ্জন-জয়শংসন-করুণায়তনয়নম্)
প্রণতি-দশকম্ (নৌমি শ্রীগুরুপাদাব্জং যতিরাজেশ্বরেশ্বরম্)
শ্রীগুরু আরতি-স্তুতি (জয় ‘গুরু-মহারাজ’ যতিরাজেশ্বর)
প্রণাম-মন্ত্রম্

এখন শ্রীগ্রন্থরাজ শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্ পরমগুরুমহারাজ ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীলভক্তি রক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজ কর্তৃক সংকলিত সমপূর্ণরূপে উপস্থিত হয় । শ্রীসজ্জনপাঠকগণ এই গ্রন্থ অনলাইনে পড়তে, PDF ডাউনলোড করতে (3.6 Mb) বা আমাদের অনলাইনে বইয়ের দোকানে কিনতে পারেন ।

 

শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: শ্রীশ্রীভগবদ্বচনামৃতম্
"যাহারা গৃহ, পুত্ত্র, কলত্র, আত্মীয়-স্বজন, ধন, প্রাণ, ইহলোক, পরলোক পরিত্যাগ করিয়া আমার শরণ লইয়াছে, তাহাদিগকে পরিত্যাগ করিতে আমার উৎসাহ কিরূপে হইবে ? যাঁহারা আমার জন্য ধর্ম্ম ও সমাজ পরিত্যাগ করিয়াছেন, আমি তাঁহাদিগকে বিশেষরূপে পালন করিয়া থাকি ।"

 

সোমবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: কার্পণ্যম্
"হে নাথ, যে ব্যক্তি তোমার প্রতিজ্ঞা স্মরণ করিয়া “আমি তোমারই” বলিয়া একমাত্র শরণাগত হয়, সেও তোমার কৃপাপাত্র । কেবলমাত্র আমাকেই বর্জ্জন করিয়া কি তোমার এই প্রতিজ্ঞা ? হে ভগবন্, যদি চতুরানন-প্রমুখ তোমার স্তবকারী হইলেন, পঞ্চানন-প্রমুখ দেবগণ তোমার ধ্যানকারী হইলেন, শতক্রতু প্রভৃতি দেবগণ তোমার আজ্ঞাকারী হইলেন, তবে হে বাসুদেব, আমরা তোমার কে ?"

 

রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: আত্মনিক্ষেপঃ
"শ্রীহরিপাদপদ্মে দেহাদি হইতে শুদ্ধ আত্মা পর্য্যন্ত নিঃশেষরূপে সমর্পণকেই ‘আত্মনিক্ষেপ’ কহে । স্বনিমিত্ত চেষ্টা-ত্যাগ এ একমাত্র কৃষ্ণের নিমিত্তই চেষ্টাশীলতা ; এমন কি নিজ সাধ্য-সাধন পর্য্যন্তও কৃষ্ণের উপরেই নির্ভর করা—ইহার ফল স্বরূপ । এইরূপে নিজ নাথের চরণপদ্মে আপনাকে নিক্ষেপ করিয়া তথা হইতে আর ছাড়াইতে পারেন না এবং সর্ব্বদা তন্ময়তাই ভজনা করেন ।"

 

রবিবার, ১ অক্টোবর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: গোপ্তৃত্বে-বরণম্
"হে কৃষ্ণ ! আমাকে পালন কর, হে নাথ ! কৃপা করিয়া আমাকে আত্মসাৎ কর, এই প্রকার এবং কৃষ্ণকে পতিরূপে পাইবার প্রার্থনাকে ভক্তগণ পরম হৃদয়সুখকর ‘গোপতৃত্বে বরণ’ বলিয়া জানেন । প্রপত্তির সহিত একার্থবোধক বলিয়া ইহা প্রপত্তির বিভিন্ন অঙ্গের অঙ্গিস্বরূপে গৃহীত হয় "

 

রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: রক্ষিষ্যতীতি বিশ্বাসঃ
"শ্রীকৃষ্ণ নিশ্চয়ই আমাকে রক্ষা করিবেন ; যেহেতু তিনি ভক্তগণের বান্ধব । তিনি নিশ্চয়ই মঙ্গল বিধান করিবেন—এই প্রকার বিশ্বাসকেই প্রখানে ধরা হইয়াছে । হে হরে, দ্রৌপদীর পরিত্রাণে ও গজেন্দ্রের মোক্ষণে তুমি যে ত্বরা দেখাইয়াছিলে, হে করুণামূর্ত্তে, আজ আমি আর্ত্ত ; তোমার সেই ত্বরা কোথায় গেল ?"

 

রবিবার, ২৭ অগাস্ট ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: প্রাতিকূল্য-বিবর্জ্জনম্
"শ্রীভগবান্ ও তাঁহার ভক্তের সেবার এবং প্রপত্তিভাবের প্রতিকূল বিষয় বর্জ্জনীয় বলিয়া নিয়মকে ‘প্রাতিকূল্য বিবর্জ্জন’ কহে । যেখানে কৃষ্ণকথাসুধাসরিৎ নাই, যেখানে কৃষ্ণাশ্রিত সাধুলোক নাই, যেখানে কৃষ্ণকীর্ত্তনরূপ মহোৎসব হয় না, সে স্থান যদিও সুরেশলোক হয়, সেখানে বাস করিবে না ।"

 

রবিবার, ১৩ অগাস্ট ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: আনুকূল্যস্য সঙ্কল্পঃ
"শ্রীকৃষ্ণ ও তাঁহার ভক্তের সেবার এবং শরণাগত ভাবের অনুকূল বিষয় সমূহ কর্ত্তব্য বলিয়া নিশ্চয়কে ‘আনুকূল্যের সঙ্কল্প’ বলা যায় ।" পরমানুকূল্য-বিধানকারী কী এবং মুখ্যসম্পত্তি-গুণ পরমমঙ্গল কী ?

 

রবিবার, ৩০ জুলাই ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: শ্রীশাস্ত্রবচনামৃতম্
"শ্রুতি স্মৃতি প্রভৃতি শাস্ত্রসমূহে প্রপত্তি যে-ভাবে নিরূপিত হইয়াছেন, তাহা শ্রীশাস্ত্রবচনামৃত নামক এই দ্বিতীয় অধ্যায়ে লিখিত হইল । হে ভগবান্, জীব যে কাল পর্য্যন্ত পরমাত্ম-বস্তু আপনা হইতে পৃথক্ মায়া-কল্পিত ইন্দ্রিয়-গ্রাহ্য এই জগৎ দর্শন করে, তৎকাল পর্য্যন্ত কর্ম্মফলময় দুঃখপূর্ণ সংসার নিরর্থক হইলেও তাহাকে ত্যাগ করে না ।"

 

রবিবার, ১৬ জুলাই ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: উপক্রমামৃতম্
"অত্যন্ত অর্ব্বাচীন হইলেও আমি প্রাচীনগণের সুসম্মত কতিপয় শ্লোক সাধুগণের সন্তোষের নিমিত্ত এই গ্রন্থে আহরণ করিতেছি । হে পণ্ডিতগণ ! স্বভাবতঃ অতি লঘুব্যক্তি আমা হইতে প্রকাশিত হইলেও এই হরিগুণময়ী রচনা আপনাদের অভীষ্ট বিধান করিবেন । কেননা নীচজাতি পুলিন্দ কর্ত্তৃক কাষ্ঠসংঘর্ষণে উৎপাদিত অগ্নি কি সুবর্ণসমূহের অন্তর্মল বিদূরিত করে না ?"

 

রবিবার, ২ জুলাই ২০১৭:
শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: নিবেদন
"পরিশেষে শ্রীগুরু-গৌরাঙ্গ-গান্ধর্ব্বা-গোবিন্দসুন্দরগণের শ্রীচরণে আমাদের ঐকান্তিক প্রার্থনা এই যে, তাঁহাদের অপার করুণায় এই শ্রৌতসিদ্ধান্তামৃতধারা মাদৃশ ত্রিতাপদগ্ধ জীবের হৃদয়ে নিরন্তর প্রবাহিত হইয়া পারমার্থিক শান্তি বিধান করুন ।"

শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্: প্রকাশকের নিবেদন
"গ্রন্থই গ্রন্থকারের বাস্তব পরিচয় প্রদান করে । পরমানন্দস্বরূপ শ্রীহরিপাদপদ্ম লাভ করিবার আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে শ্রীপ্রপন্ন-জীবনামৃত দেশবাসীর গৃহে গৃহে বিরাজ করিতে থাকুন । 'ঘৃষ্টং ঘৃষ্টং পুনরপি পুনশ্চন্দনং চারুগন্ধং' বিচারে এই গ্রন্থের আলোচনা দ্বারা সৎসিদ্ধান্তামোদী সজ্জনগণ ইহার ভাব-সৌরভ লাভ করিয়া পরমানন্দ অনুভব করিবেন আশা করি ।"

 

মঙ্গলবার, ২ মে ২০১৭:
আমার শোচন (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"এই জগতের পিতা, মাতা, ভাই, বোন, এইসব সম্বন্ধ দুদিনের সম্বন্ধ কিন্তু গুরুর সঙ্গে শিষ্যের সম্বন্ধটা হয়েছে জন্ম-জন্ম-অন্তরের সম্বন্ধ । সেইটা যে বুঝতে না পারে, সে সত্যিকারের গুরু হতে পারে না, সে সত্যিকারের শিষ্য হতে পারে না । এটা সবসময় আপনাদের মনে রাখতে হবে ।"

 

মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৭:
আমি তো সব ব্যবস্থা করি নাকি ? (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"এক যে ছিল ব্রাহ্মণ, তার নাম ছিল অর্জ্জুন মিশ্র । তিনি প্রত্যেক দিন গীতা-পাঠ করতেন আর প্রত্যেক দিন ভিক্ষায় বেরিয়ে যেতেন । এক দিন গীতা-পাঠ করে এই শ্লোকটা দেখতে পেলেন, 'যারা অন্য চিন্তা বাদ দিয়ে আমার শরণাপন্ন হয়, তাদের খাবারটা আমি বয়ে এনে দেই'"...

 

বুধবার, ১২ এপ্রিল ২০১৭:
ভক্ত ও নাপিত (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আমি হাতটা মুখের সামনে তুলে কি আঙ্গুলটা গুণতে পারব ? না, হাতটা একটু দূরে রেখতে হবে । ভগবানের মন্দিরে গিয়ে ভগবানকে দেখেবে ? “ভক্তের হৃদয়ে গোবিন্দ বিশ্রাম করেন”—ভক্তের কাছে গেলে ভগবান দেখা দেবেন, তার ভক্তের সঙ্গই করে যেতে হবে ।"

 

মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০১৭:
ভগবানের চরণে পথ (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"দিন তো চলে যাবে । সময় ফুরিয়ে আসবে, তখন চলে যেতে হবে কিন্তু কতটা ভগবানের সেবা করতে পারলাম ? কতটা গুরু-বৈষ্ণবের সেবা করতে পারব আর পরলাম ? কতটা ভগবানের সেবার দিকে নিজেকে নিযুক্ত করতে পারলাম । সেইটা সবসময় চিন্তা করতে হবে ।"

 

বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ ২০১৭:
পূজনীয় বিসর্জন (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"রামানুজ আচার্য্যের দুই বিশেষ শিষ্য ছিল । কি ভাবে তারা বিসর্জন দিলেন ? তারা কোন সুখের চিন্তা করতেন না, শুধু গুরু-সেবার জন্য চিন্তা করতেন আর গুরু-সেবার জন্য তারা জীবনটাও বিপন্ন করে দিলেন..."

 

বুধবার, ১ মার্চ ২০১৭:
শ্রীহরিনাম দীক্ষা : গুরুপাদপদ্মের দান (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"ত্যযুগের ধর্ম্ম, ত্রেতাযুগের ধর্ম্ম, দ্বাপরযুগের ধর্ম্ম কলিযুগের ধর্ম্মের আলাদা । সত্যযুগে লোক ধ্যান করে ভগবানকে পেতেন, ত্রেতাযুগে লোক যজ্ঞ করতেন, দ্বাপরযুগে ধর্ম্ম ছিল অর্চনা-পূজা । আর কলিযুগের ধর্ম্ম হচ্ছে হরিনাম সঙ্কীর্ত্তন ।"

 

মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০১৬:
শিবজী মহারাজ : পরম বৈষ্ণব (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"কেউ বলে, 'তুমি শিব ভক্ত, আমি কৃষ্ণ ভক্ত !' এরকম বলবেন না । শিব আর কৃষ্ণ আলাদাও নয়, আবার শিব আর কৃষ্ণ একও নয় । শিব হচ্ছেন কৃষ্ণের অংশবিশেষ । শিব ভগবানের সেবক, শিবজী মহারাজ পরমভক্ত ।"

 

রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০১৬:
বামনদেবের কথা (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"দৈত্যরাজ ছিল বলি মহারাজ । সে বলি মহারাজ দেখতে পারলেন যে, সব অসুররা পরাজিত হচ্ছে, সবাই মরে যাচ্ছে আর উনি ভাবলেন, 'আমাকে বিরাট যজ্ঞ করতে হবে ।' এদিকে স্বর্গে অদিতি চিন্তা করলেন, 'হে প্রভু ! তোমার ইচ্ছায় এ সব হচ্ছে, তুমি একটু ব্যবস্থা করে দাও—আবির্ভুত হও !' আর সে অদিতির গর্ভেই ভগবান বামন-রূপে আবির্ভুত হলেন..."

 

 

সংরক্ষণাগার : আগের আপডেট

 

 

 

শ্রীগৌড়ীয়-পর্ব্ব-তালিকা

জানুয়ারী মাস—৩১ দিন

২৯ নারায়ণ, ১৬ পৌষ, ১ জানুয়ারী (২০১৭), সোমবার, গৌর-চতুর্দ্দশী দিবা ১১।১৫ । উঃ ৬।২৩ অঃ ৪।৫৯ ।

৩০ নারায়ণ, ১৭ পৌষ, ২ জানুয়ারী, মঙ্গলবার, পূর্ণিমা দিবা ৮।৫৪ । শ্রীশ্রীকৃষ্ণের পুষ্যাভিষেক যাত্রা । পূর্ণিমার উপবাস । উঃ ৬।২৩ অঃ ৫।০০ ।

মাধব মাস—২৯ দিন

২ মাধব, ১৯ পৌষ, ৪ জানুয়ারী, বৃহস্পতিবার, কৃষ্ণ-তৃতীয়া রাত্রি ২।১৫ । শ্রীল গোপাল ভট্ট গোস্বামী প্রভুর আবির্ভাব ও শ্রীল রামচন্দ্র কবিরাজের তিরোভাব । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।০১ ।

৩ মাধব, ২০ পৌষ, ৫ জানুয়ারী, শুক্রবার, কৃষ্ণ-চতুর্থী রাত্রি ১২।২৫ । শ্রীপাদ যাদবেন্দু ভক্তিচন্দনের তিরোভাব । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।০২ ।

৫ মাধব, ২২ পৌষ, ৭ জানুয়ারী, রবিবার, কৃষ্ণ-ষষ্ঠী রাত্রি ৯।৪৭ । শ্রীল জয়দেব গোস্বামী প্রভুর তিরোভাব । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।০৩ ।

৭ মাধব, ২৪ পৌষ, ৯ জানুয়ারী, মঙ্গলবার, কৃষ্ণ-অষ্টমী রাত্রি ৮।৫৪ । শ্রীল লোচনদাস ঠাকুরের তিরোভাব । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।০৪ ।

৯ মাধব, ২৬ পৌষ, ১১ জানুয়ারী, বৃহস্পতিবার, কৃষ্ণ-দশমী রাত্রি ১০।০৪ । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।০৬ ।

১০ মাধব, ২৭ পৌষ, ১২ জানুয়ারী, শুক্রবার, কৃষ্ণ-একাদশী রাত্রি ১১।২৪ । অদ্য হইতে শ্রীগঙ্গাসাগরে শ্রীশ্রীগৌরনিত্যানন্দ ও শ্রীশ্রীগান্ধর্ব্বা-
গোবিন্দসুন্দর জীউর প্রাকট্য বার্ষিকী উপলক্ষে শ্রীচৈতন্য-সারস্বত সেবাসদন তিন দিনব্যাপী মহোৎসব আরম্ভ । অদ্য উপবাস নহে । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।০৬ ।

১১ মাধব, ২৮ পৌষ, ১৩ জানুয়ারী, শনিবার, কৃষ্ণ-দ্বাদশী রাত্রি ১।০৬ । পক্ষবর্দ্ধিনী মহাদ্বাদশীর উপবাস । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।০৭ ।

১২ মাধব, ২৯ পৌষ, ১৪ জানুয়ারী, রবিবার, কৃষ্ণ-ত্রয়োদশী রাত্রি ৩।০৭ । প্রাতঃ ৬।২৬ গতে ৯।৫৯ মধ্যে মহাদ্বাদশীর পারণ । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।০৭ ।

মাঘ—৩০ দিন

১৩ মাধব, ১ মাঘ, ১৫ জানুয়ারী, সোমবার, কৃষ্ণ-চতুর্দ্দশী শেষ রাত্রি ৫।১৭ । শ্রীমন্ মহাপ্রভুর সন্ন্যাসলীলা তিনদিনব্যাপী স্মরণ মহোৎসব । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।০৮ ।

১৪ মাধব, ২ মাঘ, ১৬ জানুয়ারী, মঙ্গলবার, অমাবস্যা অহোরাত্র । অমাবস্যার উপবাস । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।০৯ ।

১৬ মাধব, ৪ মাঘ, ১৮ জানুয়ারী, বৃহস্পতিবার, গৌর-প্রতিপদ দিবা ৯।২৩ । ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিগৌরব বৈখানস মহারাজের তিরোভাব ও শ্রীহরিপদ চৌধুরী দাসাধিকারীর নির্য্যাণ । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।১০ ।

১৭ মাধব, ৫ মাঘ, ১৯ জানুয়ারী, শুক্রবার, গৌর-দ্বিতীয়া দিবা ১০।৫৯ । ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিশরণ শান্ত মহারাজের তিরোভাব । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।১০ ।

২০ মাধব, ৮ মাঘ, ২২ জানুয়ারী, সোমবার, গৌর-পঞ্চমী দিবা ১।০০ । শ্রীকৃষ্ণের বসন্ত-পঞ্চমী । শ্রীশ্রীবিষ্ণুপ্রিয়া দেবীর আবির্ভাব । শ্রীল পুণ্ডরীক বিদ্যানিধি, শ্রীল রঘুনাথ দাস গোস্বামী ও শ্রীল রঘুনন্দন ঠাকুরের আবির্ভাব এবং শ্রীল বিশ্বনাথ চক্রবর্ত্তী ঠাকুরের তিরোভাব । ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিবিবেক ভারতী ও ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিস্বরূপ পর্ব্বত মহারাজের তিরোভাব । শ্রীসরস্বতী পূজা । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।১২ ।

২২ মাধব, ১০ মাঘ, ২৪ জানুয়ারী, বুধবার, গৌর-সপ্তমী দিবা ১১।৪৯ । মহাবিষ্ণুর অবতার শ্রীঅদ্বৈত আচার্য্যের আবির্ভাব । উঃ ৬।২৬ অঃ ৫।২৪ ।

২৩ মাধব, ১১ মাঘ, ২৫ জানুয়ারী, বৃহস্পতিবার, গৌর-অষ্টমী দিবা ১০।৩৪ । ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিপ্রপন্ন পরিব্রাজক মহারাজের তিরোভাব ও শ্রীপাদ বীরেন্দ্রকৃষ্ণ প্রভুর নির্য্যাণ । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।১৪ ।

২৪ মাধব, ১২ মাঘ, ২৬ জানুয়ারী, শুক্রবার, গৌর-নবমী দিবা ৮।৫৬ । শ্রীপাদ মধ্বাচার্য্যের তিরোভাব । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।১৫ ।

২৫ মাধব, ১৩ মাঘ, ২৭ জানুয়ারী, শনিবার, গৌর-দশমী প্রাতঃ ৭।০১ পরে গৌর-একাদশী শেষরাত্রি ৪।৫৩ । অদ্য উপবাস নহে । শ্রীল রামানুজ আচার্য্যের তিরোভাব । উঃ ৬।২৫ অঃ ৫।১৬ ।

২৬ মাধব, ১৪ মাঘ, ২৮ জানুয়ারী, রবিবার, গৌর-দ্বাদশী রাত্রি ২।৩৫ । শ্রীবরাহদেবের আবির্ভাব । পূর্ব্বদিনের একাদশী তিথি দশমী িবদ্ধা হওয়ায় অদ্য ভৈমী একাদশী ও শ্রীবরাহদেবের আবির্ভাব উপলক্ষে উপবাস । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।১৭ ।

২৭ মাধব, ১৫ মাঘ, ২৯ জানুয়ারী, সোমবার, গৌর-ত্রয়োদশী রাত্রি ১২।১৪ । শ্রীশ্রীনিত্যানন্দ প্রভুর আবির্ভাব । প্রাতঃ ৬।২৪ গতে ১০।০১ ভৈমী একাদশী পারণ । শ্রীএকচক্রাধামস্থিত শ্রীচৈতন্য-সারস্বত কৃষ্ণানুশীলন সংঘে শ্রীগুরু-শ্রীগৌর-শ্রীনিত্যানন্দ বিগ্রহগণের প্রাকট্য বার্ষিকী মহোৎসব । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।১৭ ।

২৮ মাধব, ১৬ মাঘ, ৩০ জানুয়ারী, মঙ্গলবার, গৌর-চতুর্দ্দশী রাত্রি ৯।৫৩ । উঃ ৬।২৪ অঃ ৫।১৮ ।

২৯ মাধব, ১৭ মাঘ, ৩১ জানুয়ারী, বুধবার, পূর্ণিমা রাত্রি ৭।৩৯ । শ্রীকৃষ্ণের মধুরোৎসব । শ্রীল নরোত্তম ঠাকুরের আবির্ভাব । পূর্ণিমার উপবাস । পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ সন্ধ্যা ৫।১৮–৮।৪২ । উঃ ৬।২৩ অঃ ৫।১৯ ।


 

      

 

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥