আমাদের শ্রীগুরুপরম্পরা :
শ্রীশ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজ ভগবান্ শ্রীশ্রীল ভক্তি সিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী ঠাকুর
              প্রভুপাদ
“শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠে সূর্যাস্ত কখনই হয় না” :
আমাদের মঠের পরিচয় ও বৈশিষ্ট্য
 
আমাদের সম্পর্কে শ্রীউপদেশ শ্রীগ্রন্থাগার শ্রীগৌড়ীয় পঞ্জিকা ছবি প্রণামী ENGLISH
 

আপডেট সংরক্ষণাগার

 

২০২০

 

রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০:
উলুবেড়িয়ায় হরিকথা (First Programme at New Uluberia Temple)
ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রী শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের পদ্মমুখনিঃসৃত শ্রীহরিকথামৃত: "যাঁরা এখানে উলুবেড়িয়ায় সিনিয়র ভক্তরা আছেন, তাঁরা অনেক দিন ধরে চেষ্টা করছেন, অনেক দিন ধরে আপনাদের গ্রামে গ্রামে, দরজায় দরজায় গিয়ে বলেন, ‘বল কৃষ্ণ কহ কৃষ্ণ কর কৃষ্ণ শিক্ষা’—এই কথা ভিক্ষা করছেন আপনাদের জন্য । যাঁর ভাগ্য হয়েছে, যাঁর পূর্ব্ব পূর্ব্ব জন্মের সুকৃতি ছিল, তাঁরা এই সাধুসঙ্গের প্রভাবে এসে সাধুসঙ্গ করেন, তাঁদের হৃদয়টা একটু পরিষ্কার হয়েছে, হৃদয়টা নির্ম্মল হয়েছে । ওই সিনিয়র ভক্তরার এখন অনেক বয়স হয়ে গিয়েছে, কিন্তু তাঁরা আপনাদেরকে নবদ্বীপ, পরী, বন্দাবন, অনেক জায়গায় জায়গায় নিয়ে যান যাতে আপনি সত্যিকারের কৃষ্ণপথে আসতে পারেন—তার জন্য তাঁরা আপ্রাণ চেষ্টা করে গিয়েছেন ।"
পাঠ শুনতে/ডাউনলোড (17.2 Mb, 41 min | ১৮ জানুয়ারি ২০২০)

 

রবিবার, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২০:
শ্রীগৌড়ীয়-পর্ব্ব-তালিকা ৫৩৪-৫৩৫
শুভ তিথি, একাদশী ও উপবাস তিথি, পরাণ সময় এবং আগামী বছরের মহোৎসব তিথি । এখন অনলাইনে পড়তে কিংবা PDF ডাউনলোড করতে পারেন ।

 

রবিবার, ২৬ এপ্রিল ২০২০:
সাধুসঙ্গের সর্ব্ব শ্রেষ্ঠ ফল (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"যে গৌড়ীয়া-বৈষ্ণবগণ শ্রীরূপানুগ-ধারায় আচরণ করেছেন, তাদেরকে বাদ দিয়ে কিছু হতে পারে না । এই লাইনের বাহিরে গেলে আমাদের কোন কাজ নয় । কিন্তু এখানে একটা সমস্যা আছে । বহু ভাগ্যের ফলে আমরা এই মানব জন্ম লাভ করেছি কিন্তু খাওয়ার লোভে, অর্থের লোভে, মুক্তির লোভে, ভুক্তির লোভে, ভোগ-বাসনার জন্য আমরা এই সাধন-ভজনের ফল অবলম্বন করতে পারি না ।"

 

বুধবার, ২৯ এপ্রিল ২০২০:
আনুগত্যময়ী ভজন
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আসলাম, এক দিন শুধু নাচলে গাইলে, সাত দিন ধরে থাকলাম, এখানে একদিন কীর্ত্তন করলাম, একটু প্রসাদ পেলাম—সেটা প্রাণহীন করলে ঠিক মত ভজন হবে না । সন্ধ্যা হলে ঘণ্টা বাজান, একটু শঙ্খে ফুঁ মারেন, ফুলটুল দেন, ধূপ দেন, বলে আমাদের হরিভজন হয়ে গিয়েছে । হতে হয় না, হতে পারেও না ।"

 

রবিবার, ৩ মে ২০২০:
হরি-ভজনের লক্ষণ
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"যে ভাগবতের কথা গ্রন্থের লেখা আছে, সেই গ্রন্থ আমরা পছন্দ করি না । আমাদের পড়তে ভাল লাগে না, আমাদের কিছু শক্তি আসে না, সেবা-উৎসাহ নেই । আমরা অনেক দিন ধরে দীক্ষা নিয়েছি, কিন্তু আস্তে আস্তে ভজন-সাধন কমিয়ে এনেছি । আমরা সব সময় দেহের চিন্তা করি আর যারা এই পথে আসেন নি, তারা আবার ভগবানের সঙ্গে cheating (ছলনা) করেন ।"

 

বুধবার, ৬ মে ২০২০: (শ্রীশ্রীনৃসিংহ-চতুর্দ্দশী ; উপবাস)
শ্রীনৃসিংহপল্লী (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"শ্রীনৃসিংহদেব ও প্রহ্লাদ মহারাজের কথা খুব গুরুত্বপূর্ণ কথা, আপনাদের এই কথাগুলো মন দিয়ে শুনতে হবে এবং সব সময় মনে রাখতে হবে । যে শিক্ষা শ্রীল গুরুদেব আমাকে দিয়েছেন, সেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা । যে কথাটা তিনি বলেছেন, সেটা আমি এখনও মনে রাখি এবং আপনাদের মঙ্গল প্রদান করবার জন্য এখন বলে দিচ্ছি ।"


(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
শ্রীশ্রীনৃসিংহদেব ও প্রহ্লাদ মহারাজেরর মুখঃনিসৃত গুণমহিমা কীর্ত্তন—শ্রীল গুরুমহারাজের পাঠ এই শুভ দিনে । রেকর্ডিংটা ডাউনলোড বা অনলাইন শুনতে পারেন (নিম্নে)।
ডাউনলোড (20.1 Mb, 56 min | ২২ মে ২০০৫)

কীর্ত্তন
ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের মুখঃনিসৃত কীর্ত্তন শ্রীশ্রীনৃসিংহ-চতুর্দ্দশী দিনে ।
ডাউনলোড (1.4 Mb, 4 min | ২২ মে ২০০৫)

শ্রীশ্রীনৃসিংহ-চতুর্দ্দশী (১৯৯০ সাল)
ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজ ভগবান শ্রীশ্রীনৃসিংহদেবের লীলা আর মহিমা বর্ণনা করিতেছেন এবং শ্রীমদ্ভাগবতম্ থেকে পড়িতেছেন ।
ডাউনলোড (27.5 Mb, 81 min | ৮ মে ১৯৯০)

 


 

কীর্ত্তনগুলো

ইতো নৃসিংহঃ পরতো নৃসিংহো,
যতো যতো যামি ততো নৃসিংহঃ ।
বহির্নৃসিংহো হৃদয়ে নৃসিংহো
নৃসিংহমাদিং শরণং প্রপদ্যে ॥

ডাউনলোড (2.4 Mb, 7 min)

 

 

দশাবতারস্তোত্রম্
"তব করকমলবরে নখমদ্ভুতশৃঙ্গং দলিতহিরণ্যকশিপুতনুভৃঙ্গম্ । কেশব ধৃতনরহরিরূপ জয় জগদীশ হরে ।"
ডাউনলোড (4.5 Mb, 14 min)

শ্রীনৃসিংহপল্লীতে আরতি: (1) জয় জয় গুরুদেব করুণাসাগর
ডাউনলোড (2.4 Mb, 7 min | ১৬ মার্চ ২০১৯)

শ্রীনৃসিংহপল্লীতে আরতি: (2) শ্রীনৃসিংহ, জয় নৃসিংহ, জয় জয় নৃসিংহ
ডাউনলোড (5.3 Mb, 16 min | ১৬ মার্চ ২০১৯)

 

সোমবার, ১১ মে ২০২০:
সেবার প্রতি টান
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"হঠাৎ করে যদি আপনাকে আজকে বলি যে, সকাল বেলা মঙ্গলারতিতে উঠতে হবে, উঠতে পারবেন না । সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠতে অভ্যাস করতে হবে । উমুক করছে না, ও করছে না, এ করছে না, এ সব অভিযোগ দেওয়ার দরকার নেই—সে করছে না করছে, আমিই করব । কোন অভিযোগ নেই ।"

 

বুধবার, ১৩ মে ২০২০
ফাঁকি দেওয়া হবে না
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"গুরুদেবের কাছ থেকে দীক্ষা নাম করে দীক্ষা আমরা অভিনয় করি । আমার কাছে ফাঁকি দেওয়া চলে কিন্তু ভগবানের কাছে আসল স্বরূপটা বেরিয়ে পড়বে । বেশি দিন ফাঁকি দিতে পারবেন না—বাজারে নকল জিনিস নিয়ে কয় দিন ঢুকে করবেন ? একদিন ধরা পড়ে যাবেন । যখন সময় হবে তখন আসল স্বরূপ বেরিয়ে পড়বে ।"

 

রবিবার, ১৭ মে ২০২০
একনিষ্ঠা ভজন
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"একনিষ্ঠা ভাবে গুরু-বৈষ্ণব-ভগবানের সেবা করতে হবে । অনেকের বাড়িতে গিয়ে দেখেছি, দুর্গা, লক্ষ্মী, কালী, গনেশ, জগন্নাথ, কৃষ্ণ, সব এক ঘরে থাকে—ওরা ঠাকুরের মুসিয়াম সাজিয়ে রেখেছেন ! ওরা সবাইকে সন্তুষ্ট করছেন কিন্তু সবাইকে কি সন্তুষ্ট করতে সম্ভব ?"

 

বুধবার, ২০ মে ২০২০
কাঙ্গালী ভোজন কবে হ’বে ?
(শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ঠাকুর প্রভুপাদের হরি-কথামৃত)
"তুই কিসের কাঙ্গাল ; কি তোর অভাব ; কি চা’স্ ? হায়, হায়,—তুই যে তোর এই জড় ইন্দ্রিয়গুলিকেই কেবল পরিতৃপ্ত কর্ত্তে চাস্ ; তাদের দুষ্ট ক্ষুধায় ইচ্ছামত ভোগ-সুখেরই অভাব অনুভব করিস্ ; আর, তাহা যথেষ্টরূপ যোগাইতে না পারিয়া তাহারই তরে আপনাকে কাঙ্গাল ভাবিস্ ! আয় মন, আয়, যাদি শ্রেয়ঃ লাভ করিবি,—আয়,—ভোজনের কাঙ্গাল হইয়া নয়, ভজনের কাঙ্গাল হইয়া আয়, আর পরমপাবন ভাগবত-জনের চরণে লুঠিয়া মাথায় তুলিয়া নে ।"

 

রবিবার, ২৪ মে ২০২০
আমাদের পরিচয়
(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"কৃষ্ণ আমাদের পালন করেন । আমরা ভাবি আমাদের পিতা-মাতা পালন করেন, আমাদের স্ত্রী-পুত্র পালন করেন কিন্তু এই জগতে কেউ কার নয় । যদি পিতা-মাতা আপন হত, তাহলে পিতা-মাতা আমাদের ছেড়ে চলে যান কেন ? পুত্র-কন্যা আমাদের ছেড়ে দিয়ে চলে যায় কেন ? এই জগতে আপন কে ? একমাত্র কৃষ্ণ ।"

 

বুধবার, ২৭ মে ২০২০
তোমার ট্রেনটা কোথায় ? (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"যখন আপনারা গুরুর পাদে চরণাশ্রয় করেন, তখন গুরুদেবের কাছে আত্মসমর্পণ করেন আর গুরুদেব কী করেন ? উনি আপনাদেরকে টিকিট কেটে দেন । কিসের টিকেট ? বৃন্দাবন যাওয়ার টিকিট । কিন্তু সমস্যাটা হয়েছে যে, গুরুদেব আপানদেরকে বৃন্দাবন যাওয়ার টিকিতটা কেটে দিলেন আর আপনারা বৃন্দাবন না গিয়ে রাস্তায় মাঝখানে বর্ধমান নেমে গেলে অন্য দিকে ঘুরে বেড়ান ।"

 

রবিবার, ৩১ মে ২০২০
সুযোগ নষ্ট করেন না (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"যারা কোন ঝামেলা, কোন কষ্ট চায় না, তারা মুক্তিকামী । ভগবান বলছেন, 'আমাকে তাদ্বারা পাবে না ।' যারা হাঙ্গামা-ঝামেলা এড়িয়ে চুপচাপ থাকতে চান, তারা ভগবানকে পাবেন না । সত্যিকারের ভক্তগণ বলেন, 'তোমার সেবা করতে গেলে যদি ঝামেলা আসে আসুক !'"

 

বুধবার, ৩ জুন ২০২০
কবে আমি পাইব বৈষ্ণব-পদছায়া ? (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আর কত দিন আপনারা থাকবেন এই জগতে ? এক্ষুণইও চলে যেতে পারি । এই মুহুর্তেও আপনাদেরকে গঙ্গার ধারে নিয়ে যাওয়া হতে পারে, কিন্তু আপনারা হরিভজন করলেন না, ভগবানকে ডাকতে পারলেন না । যখন সময় আসবে, তখন সবাইকে জবাব দিতে হবে—কী জবাব দেবেন তখন ?"

 

রবিবার, ৭ জুন ২০২০
অন্ধ, অনাথ ও অজ্ঞানের লোকের সঠিক পথ (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আমরা সবাই অনাথ কেন ? কারণ আমরা সবাই ভগবানকে ভুলে গিয়েছি । যাঁরা সত্যিকারের সাধকগণ, তাঁরা ভাবেন, 'আমি বারবার অপরাধ করে দিই'—তাঁরা সব সময় নিজেকে অত্যন্ত দীন হীন মনে করে । আর মনটাও আমাদের দুষ্ট । মনটা অন্ধ । কোনটা ভাল পথ আর কোনটা খারাপ পথ, সেটা জানে না—কিন্তু একজন বৈষ্ণব যদি মনটাকে পরিণতি করে দিয়ে গুরু-বৈষ্ণবের চরণে ফেলতে পারে, তাহলে সেটা হবে সঠিক পথ ।"

 

বুধবার, ১০ জুন ২০২০
হরিকথায় রুচি (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"আপনাদের নাতি-পুতি মরলে আপনারা কাঁদেন, স্বামী-স্ত্রী মরলে কাঁদেন, বাবা-মা মরলে কাঁদেন, কিন্তু ভগবানের বিরহে, ভক্তের বিরহে আপনাদের কষ্ট হয় না । আমাদের পাষাণ হৃদয় । শ্রীকৃষ্ণের মত কেহই ত্রিভুবনে প্রিয় নাই । ভগবান যে আমাদের প্রিয়, এই কথা কি করে আমাদের হৃদয়ে আসবে ?"

 

রবিবার, ১৪ জুন ২০২০
ভক্তি-ব্রত ও একাদশী-ব্রত (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"ভক্তগণ মুক্তিও চান না । তাঁরা ক্লেশ ও কষ্ট হাসিমুখে বরণ করতে পারেন, যদি ভগবানের সুখ হয় । আমরা ভুক্তিও চাই না, মুক্তিও চাই না—এ কথা বলা সহজ, সবাই উপদেশ দিতে পারে কিন্তু এই কথাটা জীবনে আচরণকে ফুটিয়ে তুলতে হবে । খালি উপদেশ দিলে হবে না ।"

 

বুধবার, ১৭ জুন ২০২০
অসৎসঙ্গ ও নিত্য স্মরণ (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
"দিন, রত্র, সব সময় হরিভজন করবেন । সর্ব্বাঙ্গ দিয়ে ভগবানের সেবা করবেন—দেহ, মন, বুদ্ধি, অহঙ্কার, যা কিছু আছে সমস্ত কিছু ভগবানের চরণে সমর্পণ করতে হবে । সমস্ত দুঃখ, জ্বালা, যন্ত্রনা, যা কিছু থাকবে, সব কিছু ভগবানের চরণে ছুড়ে দিতে হবে ।"

 


আপডেট সংরক্ষণাগার : ২০১৫ | ২০১৬ | ২০১৭ | ২০১৮ | ২০১৯ | ২০২০


 

বাংলা আপডেট সংরক্ষণাগার:

২০১৫ সাল:
জুন
জুলাই
অগাস্ট
সেপ্টেম্বর
অক্টোবর
নভেম্বর
ডিসেম্বর

২০১৬ সাল:
জানুয়ারী
ফেব্রুয়ারী
মার্চ
এপ্রিল
মে
জুন
জুলাই
অগাস্ট
সেপ্টেম্বর
নভেম্বর
ডিসেম্বর

২০১৭ সাল:
জানুয়ারী
মার্চ

২০১৮ সাল:
জানুয়ারী
ফেব্রুয়ারী
মার্চ
এপ্রিল
মে
জুন
জুলাই
অগাস্ট
সেপ্টেম্বর
অক্টোবর
নভেম্বর
ডিসেম্বর

২০১৯ সাল

২০২০ সাল

 

      

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥