শ্রীবৈষ্ণব-মহিমা-গীতি

 

(ওহে) বৈষ্ণব ঠাকুরদয়ার সাগর
এ দাসে করুণা করি ।
দিয়া পদছায়াশোধহে আমারে
তোমার চরণ ধরি ॥
ছয় বেগ দমি'ছয় দোষ শোধি
ছয় গুণ দেহ দাসে ।
ছয় সৎসঙ্গদেহ হে আমারে
বসেছি সঙ্গের আশে ॥*
একাকী আমারনাহি পায় বল
হরিনাম সংকীর্ত্তনে ।
তুমি কৃপা করিশ্রদ্ধাবিন্দু দিয়া
দেহ কৃষ্ণ নাম ধনে ॥
কৃষ্ণ সে তোমারকৃষ্ণ দিতে পার
তোমার শকতি আছে ।
আমি ত কাঙ্গাল'কৃষ্ণ কৃষ্ণ' বলি
ধাই তব পাছে পাছে ॥

 

 

*
ছয় বেগ:
(১) বাক্যবেগ—ভূতোদ্বেগকারী বচনপ্রয়োগ ।
(২) মনবেগ—নানাবিধ মনোরথ ।
(৩) ক্রোধবেগ—রূঢ়বাক্যাদি-প্রয়োগ ।
(৪) জিহ্বাবেগ—মধুর-অম্ল-কটু-লবণ-কষায়-তিক্তভেদে ষড়বিধ রস-লালসা ।
(৫) উদরবেগ—অত্যন্ত ভোজন-প্রয়াস ।
(৬) উপস্থবেগ—স্ত্রী-পুরুষ-সংযোগ-লালসা ।

ছয় দোষ:
(১) অত্যাহার—অধিক আহরণ বা সংগ্রহ বা সঞ্চয়চেষ্টা ।
(২) প্রয়াস—ভক্তি-বিরোধিচেষ্টা বা বিষয়োদ্যম ।
(৩) প্রজল্প—কালহরণকারী অনাবশ্যক গ্রাম্যকথা ।
(৪) নিয়মাগ্রহ—উচ্চাধিকার-প্রাপ্ত-সময়ে নিম্নাধিকারগত নিয়মে আগ্রহ এবং ভক্তিপোষক নিয়মের অগ্রহণ ।
(৫) জনসঙ্গ—শুদ্ধভক্ত-জনসঙ্গ ব্যতীত অন্যজনসঙ্গ ।
(৬) লৌল্য—নানামতবাদি-সঙ্গে অস্থির-সিদ্ধান্ত অর্থাৎ চাঞ্চল্য এবং তুচ্ছ বিষয়ে আকৃষ্ট হওয়া ।

ছয় সৎসঙ্গ:
(১) তাঁকে প্রীতির বস্তু দান করিতে হইবে আর
(২) তিনিও স্নেহ পরবশ হইয়া তাঁর আশীর্বাদ স্বরূপ যে বস্তু দিবেন তাহা আদরের সহিত গ্রহণ করিতে হইবে ।
(৩) ভজন রাজ্যে অগ্রসর হইতে যাইয়া পরিপ্রশ্ন দ্বারা ভজন রহস্য জানিয়া লইতে হইবে ।
(৪) তাঁর চরণ প্রান্তে বসিয়া তাঁর জীবনের ভজন রহস্য সুযোগ মত জিজ্ঞাসাবাদের দ্বারা জানিয়া লইবার চাতুর্য্য রাখিতে হইবে ।
(৫) ভক্ত আদরের সহিত যে ভগবৎ প্রসাদ করেন, তাহা কালাকাল বিচার না করিয়া অত্যন্ত প্রীতির সহিত সম্মান বা ভোজন করিবে ।
(৬) অনুরূপ ভগবদ্ভক্তকে অত্যন্ত শ্রদ্ধা ভক্তির দ্বারা ভোজন বা সেবা করিতে হইবে । এই ভাবেই ভক্তের স্নেহ ভাজন হইতে পারিলে "বৈষ্ণবের আবেদনে কৃষ্ণ দয়াময় । এ হেন পামর প্রতি হবেন সদয় ॥"

ছয় গুণ:
(১) উৎসাহ—ভক্তির অনুষ্ঠানে ঔৎসুক্য, আদরের সহিত অনুশীলন ।
(২) নিশ্চয়—দৃঢ় বিশ্বাস ।
(৩) ধৈর্য্য—অভীষ্টলাভে বিলম্ব দেখিয়া সাধনাঙ্গে শৈথিল্য না করা ।
(৪) ভক্তিপোষক কর্ম্ম— শ্রবণ-কীর্ত্তনাদি এবং শ্রীকৃষ্ণ জন্য স্বীয় ভোগ-সুখ-পারিত্যাগাদি ।
(৫) সঙ্গত্যাগ—অধর্ম্ম, স্ত্রীসঙ্গ, ও স্ত্রৈণ-ভাবরূপ যোষিৎসঙ্গ, যোষিৎসঙ্গি-সঙ্গ এবং অভক্ত অর্থাৎ বিষয়ী, মায়াবাদী, নিরীশ্বর ও ধর্ম্মধ্বজীর সঙ্গত্যাগ ।
(৬) সদ্বৃত্তি—সাধুগণ যে সদাচার অনুষ্ঠান করিয়াছেন এবং যে বৃত্তির দ্বারা জীবন নির্ব্বাহ করিয়াছেন ।

 


 

← গ্রন্থাগারে ফিরে

(১) ডাউনলোড (1 Mb)

(২) ডাউনলোড (1.4 Mb)

(৩) ডাউনলোড (1.2 Mb)

 


 

সূচীপত্র:
আমার জীবন সদা
অক্রোধ পরমানন্দ
ভয়ভঞ্জন-জয়শংসন
বজহুঁরে মন
ভজ রে ভজ রে আমার
ভুলিয়া তোমারে
বিমল হেমজিনি
দশাবতারস্তোত্রম্
ধন মোর নিত্যানন্দ
দুর্লভ মানব জন্ম
এইবার করুণা কর
এমন দুর্ম্মতি
গায় গোরা মধুর স্বরে
গোপীনাথ মম নিবেদন শুন
গুরুদেব! কৃপাবিন্দু দিয়া
শ্রীমদ্ভক্তিবিনোদবিরহদশকম্ (হা হা ভক্তিবিনোদঠক্কুর)
হরি হরয়ে নমঃ কৃষ্ণ
হরি হে দয়াল মোর
হে দেব ভবন্তং বন্দে
জনম সফল তা'র
জয় গুরু-মহারাজ (শ্রীগুরু আরতি-স্তুতি)
জয় গুরু মহারাজ করুণাসাগর (শ্রীশ্রীনিতাই-চৈতন্য-আরতি)
জয় জয় গুরুদেবের (শ্রীগুরু-আরতি)
জয় জয় গোরাচাঁদের (গৌর-আরতি)
জয় রাধামাধব
জয় রাধে, জয় কৃষ্ণ
জয়রে জয়রে জয় পরমহংস
কবে হবে বল সে দিন আমার
কবে শ্রীচৈতন্য মোরে
কে যাবি কে যাবি
কি জানি কি বলে
কিরূপে পাইব সেবা
মানস দেহ গেহ
নমো নমঃ তুলসী মহারাণি
নিতাই আমার দয়ার অবধি
নিতাই গুণমণি আমার
মানস দেহ গেহ
ময়ূর-মুকুট
পরম করুণ
রাধা ভজনে যদি
করাধাকুণ্ডতট
রাধে রাধে গোবিন্দ
রাধিকা চরণ পদ্ম
সংসার-দাবানল (শ্রীগুর্ব্বষ্টকম্)
শ্রীগুরুচরণ-পদ্ম
শ্রীগুরুপরম্পরা
শ্রীহরি-বাসরে হরি
শ্রীল-রঘুনাথদাস-গোস্বামি-শোচক
শ্রীমদ্রূপগোস্বামি-প্রভুর শোচক
শ্রীকৃষ্ণচৈতন্য প্রভু জীবে
শ্রীরূপমঞ্জরী-পদ
শ্রীশ্রীষড়্­গোস্বাম্যষ্টকম্
শ্রীশ্রীদামোদরাষ্টকম্
শ্রীশ্রীমদ্­গৌরকিশোরনমস্কারদশকম্
শুদ্ধ ভকত-চরণ-রেণু
সুজনার্ব্বুদরাধিতপাদযুগং
শুনহে রসিক জন
ঠাকুর বৈষ্ণবগণ
বৈষ্ণব কে ?
বৈষ্ণব ঠাকুর দয়ার
বন্দনা
যদি, গৌর না হ'ত
যশোদা-নন্দন কৃষ্ণ
যশোমতীনন্দন
যে আনিল প্রেমধন (বিরহ-গীতি)

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥