আমাদের শ্রীগুরুপরম্পরা :
শ্রীশ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজ ভগবান্ শ্রীশ্রীল ভক্তি সিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী ঠাকুর
              প্রভুপাদ
“শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠে সূর্যাস্ত কখনই হয় না” :
আমাদের মঠের পরিচয় ও বৈশিষ্ট্য
 
আমাদের সম্পর্কে শ্রীউপদেশ শ্রীগ্রন্থাগার শ্রীগৌড়ীয় পঞ্জিকা ছবি প্রণামী ENGLISH
 

গ্রন্থাগার :

ওঁ বিষ্ণুপাদ
শ্রীলভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের গ্রন্থবলী

শ্রীউপদেশ (প্রথম খণ্ড) [PDF, 2 Mb]
শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের তৃপ্তির জন্য ও তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে প্রকাশিত শ্রীগৌরপূর্ণিমায় শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৩, বঙ্গাব্দ ১৪২৩, খৃষ্টাব্দ ২০১৭ । দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত শ্রীশ্রীজগন্নাথদেবের রথযাত্রায় শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৪, বঙ্গাব্দ ১৪২৫, খৃষ্টাব্দ ২০১৮ ।
"এই মায়ার সংসার ছাড়তে হবে । আমরা সবাই একই পরিবারের লোক—কার পরিবার ? কৃষ্ণের পরিবার । আমরা মায়ার সংসারের মানুষ নয় । আমি কৃষ্ণের পরিবারের বউ, আমি কৃষ্ণের পরিবারের মেয়ে, আমি কৃষ্ণের পরিবারের সন্তান, আমি কৃষ্ণের পরিবারের ছেলে ! সেই পরিবারের আমরা অংশ গ্রহণ করতে হবে । সেই পরিবারের অংশ গ্রহণই করলে, ভগবান যেখানে থাকেন, সেখানে আপনারা পৌছাতে পারবেন এবং সেখান থেকে আর ফিরে আসতে হবে না ।"

শ্রীউপদেশ (দ্বিতীয় খণ্ড) [PDF, 6 Mb]
শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের তৃপ্তির জন্য ও তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে প্রকাশিত পরমপূজ্যপাদ ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজের শুভা তিরোভাব তিথিতে শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৪, বঙ্গাব্দ ১৪২৫, খৃষ্টাব্দ ২০১৮ ।
"মেঘাচ্ছন্ন দিন দুর্দিন নয়—হরিকথা বিহীন দিন হচ্ছে দুর্দিন । আমাদের হরিকথা প্রত্যেক দিন অনুশীলন করতে হবে, প্রত্যেক দিন আচার-আচরণ করতে হবে । মাঝে মাঝে লোক ভাবছেন আজকে একদিন হরিনাম করলাম কালকে করব না কিন্তু আমাদের আজকে খেলে কালকেও খেতে হবে, আজকে বাথরুমে গেলে কালকেও বাথরুমে যেতে হবে । গোবিন্দের সেবা প্রত্যেক দিনই করতে হবে । এ ছাড়া কোন উপায় নেই  ।"

শ্রীউপদেশ (তৃতীয় খণ্ড) [PDF, 7 Mb]
শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের তৃপ্তির জন্য ও তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে শ্রীভক্তি তিলক নিরীহ কর্ত্তৃক প্রকাশিত শ্রীমন্ নিত্যানন্দ প্রভু শুভার্বিভাব তিথিতে শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৪, বঙ্গাব্দ ১৪২৫, খৃষ্টাব্দ ২০১৯ ।
"সংসার–বাসনা যখন সম্পূর্ণরূপে থামিয়া যাইবে, তখনই শ্রীরূপ-রঘুনাথের কথা কর্ণে প্রবেশ করিবে, তাহার পূর্বে নয়। শ্রীমন্মহাপ্রভু কৃষ্ণ-সেবার কথা জানাইয়াছেন । শ্রীনিত্যানন্দ প্রভু শ্রীগৌরসুন্দরের সেবার কথা জানাইয়াছেন এবং শ্রীনিত্যানন্দপ্রভুর সেবার কথা শ্রীদামোদর-স্বরূপ প্রভু যিনি পুরুষোত্তম ভট্টাচার্য্য নামে পরিচিত ছিলেন, তিনি জগৎকে জানাইয়াছেন । শ্রীরূপ-রঘুনাথও সেই স্বরূপ-দামোদর প্রভুর কথা জানাইয়াছেন । শ্রীল গোস্বামীগণের গ্রন্থপাঠে তাহা জানা যায় ।"

 

শ্রীউপদেশ (চতুর্থ খণ্ড) [PDF, 8 Mb]
শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের তৃপ্তির জন্য ও তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে শ্রীভক্তি তিলক নিরীহ কর্ত্তৃক প্রকাশিত শ্রীমন্ মহাপ্রভুর শুভার্বিভাব তিথিতে শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৫, বঙ্গাব্দ ১৪২৬, খৃষ্টাব্দ ২০২০ ।
   "শ্রীগুরুদেবই শিষ্যের একমাত্র আশ্রয় । যে শিষ্য হয়েছে, সে তাঁর পূর্ণানুগত্যে থাকবে । স্বতন্ত্রতা থাকলে শিষ্যপদবাচ্য হবে না । মন্ত্র নিতে পারে, দীক্ষা নিতে পারে, যদি শ্রীগুরুদেবের আনুগত্য বা শাসন স্বীকার না করে, তাকে প্রকৃত শিষ্য বলা হবে না । গুরুদেবের বহু সম্পত্তি আছে । তার বংশে জন্মগ্রহণ ক’রলে তাঁর সম্পত্তির অধিকার লাভ করা যায় । রাজার বংশে জন্মগ্রহণ ক’রলে রাজপুত্র হয় । তেমনি গুরুদেবের বংশে জন্মগ্রহণ ক’রলে তাঁর শিষ্য বা সন্তান হওয়া যায় । গুরুদেবের সম্পত্তি বলতে মঠ, মন্দির, দালান-বাড়ী, টাকা-কড়ি নয়; তাঁর সম্পত্তি হলো শ্রদ্ধা, ভক্তি ও প্রেম ।
   দীক্ষার পর কি ? শ্রবণ, কীর্তন, অর্চন ও সেবা ক’রতে হবে । প্রিয়তার সঙ্গে, ভালবাসার সঙ্গে, প্রাণের রস মাখিয়ে তাঁর সেবা ক’রতে হবে । তিনি কিসে সুখী হন, সে বিষয়ে সর্বদা চিন্তা ক’রতে হবে । তাঁর সুখ-বিধানে তৎপরতা এবং তাঁর সুখের দিকে নজর থাকা চাই । তাঁর সুখের জন্য স্বার্থত্যাগ, তাঁর সুখের জন্যই সেবা ।
   সন্ন্যাসীরা চারিপাশে আগুন জ্বেলে মাঝখানে বসে থাকেন । এই আগুন জ্বালায় কেন ? যাতে ঠাণ্ডায় অবসন্ন না হ’য়ে যায় । পাঠকীর্তন, হরিসেবা, গুরুসেবাই আগুন । এই সেবারূপ ধুনী জ্বেলে রেখে জীবনে সাধনার পথে অগ্রসর হ’তে হয় ।"

 

শ্রীপুরীধাম মাহাত্ম্য-মুক্তা-মালা
শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের তৃপ্তির জন্য ও তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে প্রকাশিত শ্রীপুরীধামে প্রতিষ্ঠিত শ্রীচৈতন্যসারস্বত মঠের ৩০তম বার্ষিকী উপলক্ষে শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৫, বঙ্গাব্দ ১৪২৬, খৃষ্টাব্দ ২০১৯ ।
   "শ্রীজগন্নাথ—দৃশ্য নহেন, জগন্নাথ—দ্রষ্টা । জীবের দ্রষ্ট-অভিমান পরিত্যাগ করিয়া যখন সম্পূর্ণভাবে জগন্নাথের দৃশ্য বা ভোগ্যরূপে শুদ্ধ স্বরূপগত অভিমান হয়, তখনই জীব সেবোন্মুখ হইয়া থাকেন এবং সেই সেবোন্মুখ-প্রেম-নেত্রেই শ্রীজগন্নাথের দর্শন লাভ করেন ।
   যতক্ষণ আমরা মনে করি,—আমরা জগন্নাথকে দেখিয়া লইব, ততক্ষণ আমরা জগন্নাথ না দেখিয়া কাঠ, পাথর, বৌদ্ধ সাহিত্যিক বা ঐতিহাসিকের ঠুঁটো ভোগ্য-মূর্ত্তি-বিশেষ দেখিয়া থাকি ; আর যখন সর্ব্বান্তঃকরণে জানিতে পারি,—তিনি আমাদিগকে দেখিবেন, আমরা তাঁহার ভোগের উপকরণ, তাঁহার ভোগে আমাদের সম্ভোগের কোন অবগুন্ঠন নাই, তাঁহারই নিরঙ্কুশ যথেচ্ছাচারিতা আছে, তখনই আমাদের নিকট জগন্নাথ তাঁহাকে প্রকাশ করেন ।"

DOWNLOAD: শ্রীপুরীধাম মাহাত্ম্য-মুক্তা-মালা [PDF, 12 Mb]

 

শ্রীনবদ্বীপধাম মাহাত্ম্য-মুক্তা-মালা [PDF, 23 Mb]
এইগ্রন্থশিরোমণি শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের ইচ্ছা পূর্ণ করবার জন্য এবং তাঁর শ্রীচরণের তৃপ্তির জন্য তাঁর অহৈতুক কৃপায় শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠ হইতে প্রকাশিত হয় শ্রীমন্ মহাপ্রভুর শুভার্বিভাব তিথিতে শ্রীগৌরাব্দ ৫৩৪, বঙ্গাব্দ ১৪২৬, খৃষ্টাব্দ মার্চ্চ ২০২০ ।
   "অনেকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন যে, নানাস্থান ভ্রমণ করে কি প্রয়োজন ? বিশেষতঃ যদি বাড়ীতে ব’সে থেকে হরিসেবা হয়, তে অন্যত্র যাওয়ারই বা কি দরকার ?
   বাড়ীতে ব’সে থাকলে আমরা সাধুগণের সহিত মিলিত হ’তে পারি না । তাঁদের নিকট কথাবার্ত্তা শুনবার অবসর পাই না,—আমাদের যখন কাজ না থাকে, তখন অপকর্ম্ম ক’রে বসি—বাজে গল্পে গুজবে, পরিনিন্দায়, পরচর্চ্চায় সময় কাটায়ে দিই । সাধুসঙ্গে থাকলে হরিকথা শুনতে পারি, নিজত্বের বিচারে ভ্রান্তি হওয়ায় যে সকল অপকর্ম্ম ক’রে থাকি, তা’ হ’তে নিরম্মুক্ত হ’তে পারি । ইন্দ্রিয়জ্ঞানের দ্বারা আমাদের যে অসুবিধা হয়, সাধুর সঙ্গে থেকে হরিকথা শুনলে আমরা সেই অসুবিধার হাত থেকে ছুটী পেতে পারি । প্রতি মুহূর্ত্তে আমাদিগকে দৈবীমায়া ভগবদ্বিমুখতার রাজ্যে উপস্থিত করাচ্ছে । যে মুহূর্ত্তে আমাদের কক্ষাকর্ত্তা থাকবে না, সেই মুহূর্ত্তেই আমাদের পারিপার্শ্বিক সকল বস্তু শত্রু হ’য়ে আমাদিগকে আক্রমণ ক’রবে । প্রকৃত সাধুর হরিকথাই আমাদের একমাত্র রক্ষাকর্ত্তা । শাস্ত্র বলেন: 'সাধুসঙ্গে কৃষ্ণনাম—এইমাত্র চাই, সংসার জিনিতে আর কোন বস্তু নাই ।'"

শ্রীব্যাসপূজা নিবেদন
ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ রচিত ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজের শ্রীব্যাসপূজা নিবেদন ।

“শ্রীকৃষ্ণজন্ম বিনা জীবের জীবন বৃথা” (শ্রীউপদেশ, তৃতীয় খণ্ড থেকে)
"আমরা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইন্দ্রিয়ের ব্যর্থ ও পরিণামে পরমদুঃখের সম্ভোগের পিপাসায় শ্রীকৃষ্ণের এক একটি ক্ষুদ্র নকল সংস্করণ সাজিয়া রহিয়াছি ! পরাৎপর-কৃষ্ণের পরিবর্ত্তে অসুর-কৃষ্ণের জন্ম আমাদের অস্মিতাকে গ্রাস করিয়াছে । সম্ভোগে মত্ত হইয়া আমরা কেহ মনে করিতেছি, কৃষ্ণভজনের প্রয়োজন কি ? আমাদের হৃদয়ে সম্ভোগের অসুর প্রতিমুহূর্ত্তে জন্মগ্রহণ করিতেছে, কৃষ্ণের জন্মে আমাদের প্রয়োজন কি ?"

শ্রীশ্রীবলদেব-প্রসঙ্গ (শ্রীউপদেশ, চতুর্থ খণ্ড থেকে)
"পরমারাধ্যতম শ্রীল গুরুবর্গের শ্রীপাদপদ্মের কৃপা প্রার্থনা ক'রে শ্রীশ্রীবলদেব প্রভুর ভুবনমঙ্গলময়ী আবির্ভাব – তিথিতে ভগবৎ-কথা শ্রবণ করছি । শ্রীবলদেবই বলরাম, বলভদ্র ইত্যাদি নামে অভিহিত । কৃষ্ণের দ্বিতীয় বিগ্রহ হয়েও, কৃষ্ণ হয়েও ইনি কৃষ্ণের সেবা-বিগ্রহ রূপ ধরেছেন । কৃষ্ণ নিজেই অন্যরূপ ধরেছেন। লীলার পুষ্টিসাধনের জন্য তিনি বলদেবকে পৃথকভাবে প্রকট করেছেন । তাই কৃষ্ণাভিন্ন বলদেব। কৃষ্ণ তাঁর ঐ দেহে বিলাস করেন। আর তিনি কৃষ্ণের সেবাবিগ্রহ—তিনি সর্বশ্রেষ্ঠ সেবা-বিধানকারী ।"

 


ইংরেজি ভাষায়

Guidance, Volume One (English) [PDF, 2 Mb]
A compilation of holy discourses of Om Vishnupad Srila Bhakti Nirmal Acharya Maharaj published from Sri Chaitanya Saraswat Math for the pleasure and by the causeless mercy of Sri Gurupadpadma on the eve of his holy appearance day on 13 October 2015.
"When a devotee surrenders, they cannot spoil anything— they cannot use their mind, intelligence, ego, eyes, nose, mouth, tongue, ears for any other purpose—they must use everything for the service to the Lord, to their Guru. It is easy to say it, but very hard to do, still it is necessary to practise it. Without practising you will not get anything."

Guidance, Volume Two (English) [PDF, 4 Mb]
A compilation of holy discourses of Om Vishnupad Srila Bhakti Nirmal Acharya Maharaj published from Sri Chaitanya Saraswat Math for the pleasure and by the causeless mercy of Sri Gurupadpadma on the eve of his holy appearance day on 13 October 2015 (together with Volume One).
"We are always busy with our own interest, with our own enjoyment, but we must understand who do we love more, our Guru or ourselves? We must realise it for ourselves in our heart. If we love our Guru more, then we must serve more—we must give more time for our Guru."

Guidance, Volume Three (English) [PDF, 4 Mb]
A holy book composed by Om Vishnupad Srila Bhakti Nirmal Acharya Maharaj himself (under the alias of Srila Bhakti Tilak Niriha Maharaj) and published from Sri Chaitanya Saraswat Math on the holy appearance day of Sriman Nityananda Prabhu in 2019 (834 Gaurabda).
"When we take the Holy Name from Srila Gurudev, many of us pretend to be taking initiation, but we cannot become real servants of our Gurudev in this way. As a result, some of us become guru-bhogi (we enjoy the Guru) and some guru-tyagi (we reject the Guru). A hundred out of a hundred per cent of people yearn for kanak (money), kamini (women), pratistha (name and fame). We see the temple established by Srila Gurudev as a place for our own enjoyment, and we are not afraid to resort to even bloodshed for that. Instaed of serving the Lord, we turn the Lord into our servant, and the worshippable Deity into a bribe-taker. Unless we stay under the guidance of Sri Gurudev, the embodiment of eternal shelter, and his followers, it is impossible to practise Krishna consciousness—it will be only committing an offence."

Guidance, Volume Four (English) [PDF, 4 Mb]
A holy book composed by Om Vishnupad Srila Bhakti Nirmal Acharya Maharaj and published from Sri Chaitanya Saraswat Math on the holy appearance day of Sri Gaurasundar in 2020 (835 Gaurabda). Translated into English and published, on the order of His Divine Grace, on the holy appearance day of Sri Gaurasundar in the same year.
   "Sri Gurudev is the only shelter for a disciple. Those who have become disciples live in complete adherence to their guru. If one retains independence, they cannot be called a 'disciple'—they can take the mantra, they can take initiation, but if they do not accept guidance or disciplining of Sri Gurudev, they cannot be called a real disciple. Gurudev has a vast wealth. Those who are born into his lineage, can get the right for his wealth. Gurudev's wealth is not temples, buildings, houses, money; his wealth is faith, devotion and love.
   "What happens after initiation? It is necessary to practise hearing and chanting, worship Deities and do service. You must serve with love, affection, extracting loving devotion from your very life. You must always think about what makes Him happy. You must be anxious to make Him happy and always be alert and conscious of His happiness. Sacrifice your selfish interests for His happiness, serve for His happiness.
   "Sannyasis always sit amidst fire blazing on all four sides. This fire is Hari-katha, kirtan, service to the Lord, and service to the guru. You must progress in your practising life keeping the sacrificial fire of your service ablaze."

Sri Nabadwip-Dham Mahatmya-Mukta-Mala (English) [PDF, 75 Mb]
The translation of this holy book from Bengali into English language was completed on Sri Nityananda Trayodasi, 14 February 2022 (535 Gaurabda), following the order of our beloved Sri Gurupadpadma Om Vishnupad Srila Bhakti Nirmal Acharya Maharaj, expressed shortly before His Divine Grace's holy disappearance.
   ‘You should always remember Sri Nabadwip Dham parikrama. We have printed a very good book, Sri Nabadwip-Dham Mahatmya-Mukta-Mala. It is written in a very simple language and contains all the lectures that I myself and all the sannyasis give during the parikrama time about the glories of Sri Nabadwip Dham. When I was proofreading it and when Bengali devotees now read it, we read this book and think, "We are in Nabadwip Dham parikrama!" Srila Bhaktivinod Thakur's Sri Nabadwip-dham-mahatmya is a good book, but it is written as a poem and very hard to understand. Devotees always like easy books; they always want to read what they can understand. Even I am still not so interested in reading Sri Nabadwip-Dham-mahatmya, but the new book Sri Nabadwip-Dham Mahatmya-Mukta-Mala is written in prose, and it is a very great book'.

 

 

 

 

ফিরে গ্রন্থাগারে

বাংলা গ্রন্থ
ইংরেজি ভাষায়
স্পেনীয় ভাষায়
রাশিয়ান ভাষায়

 


 

গ্রন্থকার:

শ্রীলভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ

শ্রীলভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেব-গোস্বামী মহারাজ

শ্রীলভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেব-গোস্বামী মহারাজ

শ্রীশ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী ঠাকুর প্রভুপাদ

শ্রীলসচ্চিদানন্দ ভক্তিবিনোদ ঠাকুর

অন্যান্য গ্রন্থপ্রকাশ:

শ্রীগৌড়ীয়-গীতাঞ্জলি

বিবিধ গ্রন্থবলী ও প্রবন্ধ

শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর মূল শিক্ষা

আমাদের শ্রীগুরুপরম্পরার সম্পর্কে

 


 

সেবার প্রতি টান
'হঠাৎ করে যদি আপনাকে আজকে বলি যে, সকাল বেলা মঙ্গলারতিতে উঠতে হবে, উঠতে পারবেন না । সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠতে অভ্যাস করতে হবে । উমুক করছে না, ও করছে না, এ করছে না, এ সব অভিযোগ দেওয়ার দরকার নেই—সে করছে না করছে, আমিই করব । কোন অভিযোগ নেই ।'

      

 

 

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥